May 27, 2024, 6:13 am
শিরোনাম :
পটুয়াখালীর উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় “রেমাল” এর অগ্রভাগ দলীয় শৃঙ্খলা লঙ্ঘন, পটুয়াখালী সদর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতিকে কারন দর্শানোর নোটিশ জলোচ্ছাসে প্লাবিত হতে পারে পটুয়াখালীর উপকূলীয় অঞ্চল, ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নিম্নচাপের প্রভাবে পটুয়াখালীতে বৃষ্টি, তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত পায়রা বন্দর থেকে ৪৯০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে গভীর নিম্নচাপটি ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল, আঘাত হানবে বাংলাদেশ ও ভারতে আচরন বিধি লঙ্ঘন, দুমকিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুন অর রশিদ হাওলাদারকে শোকজ বাউফলে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিক্ষার্থীর মৃত্যু দুমকিতে মোশাররফ হত্যায় জড়িত আসামিদের ফাঁসির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন ইউনিভার্সিটি অফ গ্লোবাল ভিলেজের শিক্ষার্থীদের পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শন

ট্রেনে আগুনে মৃত্যু: কী অপরাধ ছিল মা ও তার শিশু সন্তানের

Reporter Name

ট্রেনে দুর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে মারা গেছেন নাদিরা আক্তার পপি (৩৫) ও তার শিশু সন্তান ইয়াসিন (৩)। মায়ের কোলে ছিল ৩ বছর বয়সী ইয়াসিন। বগিতে আগুন লাগলে সন্তানকে বুকে আগলে রেখেছিলেন মা নাদিরা আক্তার। মরদেহ উদ্ধারের সময় মায়ের কোলেই ছিল ইয়াসিন।

কী অপরাধে এমন নির্মম মৃত্যু হলো স্ত্রীর, কী অপরাধ ছিল শিশু সন্তান ইয়াসিনের জানতে চান পিতা মিজানুর রহমান। আগুনে পোড়া স্ত্রী-সন্তানের লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের (ঢামেক) জরুরি বিভাগের মর্গে। বাইরে অপেক্ষায় থাকা মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, কী অপরাধে আমার সব শেষ হয়ে গেলো জানি না। আমি কারও কাছে বিচার চাইবো না।

স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে মিজানুর রহমান থাকেন পশ্চিম তেজতুরী বাজার এলাকায়। বড় ছেলে রিয়াদ হাসান ফাহিম চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। ফাহিমের বার্ষিক পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর ৩ ডিসেম্বর দুই সন্তান নিয়ে নাদিরা আক্তার গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনায় যান। ঢাকায় ফেরার জন্য মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসে উঠেছিলেন তারা। নাদিরার সঙ্গে আরও ছিলেন তার ছোট ভাই হাবিবুর রহমান। ট্রেনে আগুন লাগলে ফাহিমকে নিয়ে নেমে যেতে পারেন হাবিবুর। তবে নাদিরা ও ইয়াছিন আটকা পড়ে আগুনে মারা যান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা