May 27, 2024, 6:32 am
শিরোনাম :
পটুয়াখালীর উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় “রেমাল” এর অগ্রভাগ দলীয় শৃঙ্খলা লঙ্ঘন, পটুয়াখালী সদর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতিকে কারন দর্শানোর নোটিশ জলোচ্ছাসে প্লাবিত হতে পারে পটুয়াখালীর উপকূলীয় অঞ্চল, ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নিম্নচাপের প্রভাবে পটুয়াখালীতে বৃষ্টি, তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত পায়রা বন্দর থেকে ৪৯০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে গভীর নিম্নচাপটি ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল, আঘাত হানবে বাংলাদেশ ও ভারতে আচরন বিধি লঙ্ঘন, দুমকিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুন অর রশিদ হাওলাদারকে শোকজ বাউফলে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিক্ষার্থীর মৃত্যু দুমকিতে মোশাররফ হত্যায় জড়িত আসামিদের ফাঁসির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন ইউনিভার্সিটি অফ গ্লোবাল ভিলেজের শিক্ষার্থীদের পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শন

বিলীন হচ্ছে নীলগঞ্জের গৈয়াতলা বেড়িবাঁধ, দুশ্চিন্তার কৃষকরা

সুনান বিন মাহাবুব, পটুয়াখালী অফিস:

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের সোনাতলা নদীর ভাঙ্গনে পূর্ব গৈয়াতলা গ্রামের প্রায় দেড় কিলোমিটার বেড়িবাঁধ বিলীনের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। কয়েকমাস পূর্বে জিও ব্যাগের প্রটেকশন দেয়া হলেও বর্তমানে জিও ব্যাগ ধ্বসে নদীতে চলে গেছে। নদীর পাশের স্লোপসহ মূল বাঁধের অর্ধেকটা বিলীন হয়ে গেছে।

স্থাণীয় কৃষকরা জানিয়েছেন, বাঁধ রক্ষায় এই মৌশুমেই পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন। বাঁধ ছুটে গেলে পুর্ব গৈয়াতলাসহ আশপাশের ১০-১২ গ্রামের ফসলহানি ঘটবে। আমনসহ সবজি চাষে বড় ধরনের বিপর্যয় দেখা দিবে। জিও ব্যাগ দিয়ে ভাঙ্গন রোধের চেষ্টা করেছে, কিন্তু জিও ব্যাগও ধ্বসে গেছে।

নীলগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান বাবুল মিয়া জানান, গৈয়াতলার বেড়িবাঁধ রক্ষায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ও উপজেলা পরিষদকে অবহিত করা হয়েছিল। কিন্তু কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

দেখা গেছে, বেরিবাঁধটির স্লুইসের ওয়ালসহ ব্লক নেই। বিধ্বস্ত হয়ে যাচ্ছে স্লুইসের মূল অংশ। বিভিন্ন স্পটে বাঁধে ভাঙ্গন ধরেছে। নীলগঞ্জ ইউনিয়নের এই বেড়িবাঁধটি রক্ষায় পদক্ষেপ না নিলে দেড় হাজার সবজি চাষীসহ হাজার হাজার কৃষক পরিবার জমিজমার ফলন হারানোর শঙ্কায় পড়বে। জিও ব্যাগের প্রোটেকশন দেয়া হয়েছিল এবং বিকল্প বেড়িবাঁধ করা হয়। কিন্তু তাও এখন ভেঙ্গে গেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড কলাপাড়ার প্রকৌশলী মিজানুর রহমান জানান, ওই বাঁধটির সবচেয়ে বেশি ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় জিও ব্যাগ দিয়ে জরুরি প্রটেকশন দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সোনাতলা নদীর  স্রোতের প্রবল ঝাপটায় বাঁধটি ভেঙ্গে গেছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ পেলে ভাঙ্গন রোধে কাজ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা